Main Menu

জনতার গণধোলাই শেষে তিন ডাকাত পুলিশে হস্তান্তর

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গণধোলাইয়ের শিকার ডাকাতরা। ছবি-দৈনিক হুংকার।

নড়িয়ায় গণধোলাই শেষে তিন ডাকাতকে পুলিশে হস্তান্তর করেছে স্থানীয় জনতা। শনিবার ভোর সাড়ে ৫টার সময় নড়িয়া থানা পুলিশ আহত অবস্থায় তিন ডাকাতকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। আহত ডাকাতরা হলেন নড়িয়া উপজেলার নওপাড়া গ্রামের সাহেব আলী বেপারীর ছেলে নুর আলম (২৬), উপসী বিশু গাঁও গ্রামের মঙ্গল বেপারীর ছেলে সেলিম বেপারী (৫০) ও কানার গাঁও গ্রামের মৃত রহমত উল্লাহ বেপারীর ছেলে এবাদুল (৩২)।
নড়িয়া থানা পুলিশ সূত্র জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাতে ডাকাত দল ভেদরগঞ্জ উপজেলার পদ্মা নদীতে গরুর ট্রলারে ডাকাতি করে। পরে ডাকাতি করা গরু নড়িয়া উপজেলার চরআত্রা এলাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রির জন্য প্রস্তাব করে ডাকাত দল। গরু হস্তান্তরের সময় স্থানীয় জনতা তিন ডাকাতকে আটক করে গণধোলাই দেয়। পরে নড়িয়া থানা পুলিশ ডাকাতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ডাকাতি করা গরু ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ট্রলার পুলিশের জিম্মায় নেয়া হয়েছে।
নড়িয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আবু বকর মাতুব্বর বলেন, ডাকাতদের গ্রেফতার করা হয়েছে। ডাকাতি যাওয়া গরু ও ট্রলার হেফাজতে নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

Facebook Comments





error: Content is protected !!