Main Menu

স্বামী ৩ বছর ধরে প্রবাসে স্ত্রীর সন্তান প্রসব

নবজাতক সন্তান কোলে নিয়ে অসহায় মা। ছবি-দৈনিক হুংকার।

স্বামী তিন বছর ধরে প্রবাসে অবস্থান করলেও দেশে স্ত্রী পুত্র সন্তান প্রসব করেছেন। এখন এমন ঘটনাও ঘটে। এ ঘটনার পর এলাকায় টনক নড়েছে কিন্তু টনক নড়ছে না ধর্ষক দেলোয়ার সরদারের। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক দেলোয়ার সরদার গাঁ ঢাকা দিয়েছে। প্রবাস থেকে স্বামী ভিকটিম স্ত্রীকে তালাক দেয়ার ভয় দেখাচ্ছে। স্থানীয় ভাবে বিচার না পেয়ে আইনি সহায়তা কামনা করছেন ভিকটিম ও তার পরিবার।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ভেদরগঞ্জ উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের কামাল খান দীর্ঘদিন মালয়েশিয়া প্রবাসে আছে। ইতোমধ্যে কামাল খা কয়েকবার ছুটিতে দেশে এসেছিল। সর্বশেষ তিন বছর হল কামাল প্রবাসে আছে। এর মধ্যে গত ৬ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যায় কামাল খার স্ত্রী একটি ফুটফুটে পুত্র সন্তান জন্ম দিয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ভিকটিমের কথিত মতে একই গ্রামের বুধাই সরদারের ছেলে দেলোয়ার সরদারকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। কিন্তু দেলোয়ার সরদার তা মেনে নিতে নারাজ।
ভিকটিম অভিযোগ করে বলেন, দেলোয়ার সরদার আমাকে দীর্ঘদিন যাবৎ মোবাইল ফোনে উত্যক্ত করে আসছে। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য তোতাসহ স্থানীয়দের অবগত করেছি। দেলোয়ার কারোর কথাই কর্ণপাত করত না। প্রায় ১০ মাস পূর্বে এক রাতে দেলোয়র সরদার নরবরে দরজা ঠেলে আমার ঘরে প্রবেশ করে আমাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এতে আমি গর্ভবতী হয়ে যাই। আমার গর্ভে সন্তান বেড়ে উঠতে থাকে। একথা দেলোয়ারকে জানানো হয়েছে। জবাবে দেলোয়ার বলেছে, এ সন্তান নষ্ট করা যাবে না। আমার স্বামী সন্তান সহ আমার দায়িত্ব না নিলে দেলোয়র সন্তানসহ আমার দায়িত্বভার গ্রহন করবে। এখন সন্তান প্রসবের পর দেলোয়র সরদার পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আমার স্বামী বলে দিয়েছে আমাকে রাখবে না। স্থানিয় ভাবে আমি এর কোন সমাধান পাচ্ছি না। আমি থানায় গিয়ে দেলোয়ার সরদারের বিরুদ্ধে মামলা করব। এখন ৪টি সন্তান নিয়ে আমার মাথাগোজার ঠাই নাই।
অভিযুক্ত দেলোয়ার সরদারের প্রতিক্রিয়া জানতে তার বাড়িতে যাই। প্রতিবেদকের উপস্থিতি টের পেয়ে দেলোয়ার সরদার পালিয়ে যায়। প্রায় এক ঘন্টা অপেক্ষা করেও দেলোয়ার সরদারের দেখা মিলেনি।
স্থানীয়রা জানায়, এ সংবাদ শুনে প্রবাসী কামাল খা স্থানীয়দের বলেছে তার স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার জন্য। সেই থেকে কামাল খা তার স্ত্রী-সন্তানের কোন খোঁজ খবর রাখছে না। টাকা পয়সাও পাঠায় না। এখন ভিকটিম তার সন্তানদের নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।
এ বিষয়ে ভেদরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, ঘটনা শুনে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে। ভিকটিম অভিযোগ করলে মামলা নেয়া হবে। ভিকটিমকে আইনগত সহায়তা দেয়া হবে।

Facebook Comments





error: Content is protected !!