Main Menu

ছাত্ররা কোচিং ক্লাশে আসলে পাস না আসলে ফেল এমনটা শিক্ষকের কাজনা -শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি

শরীয়তপুর সরকারী কলেজের ৪০ বছর পূর্তি ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি। ছবি-দৈনিক হুংকার।

শরীয়তপুর সরকারী কলেজের ৪০ বছর পূর্তি ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ডা. দিপু মনি এমপি বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং ক্লাশে আসতে বাধ্য করা হয়। না আসলে ফেল করিয়ে দেয়া একজন শিক্ষকের কাজ হতে পারে না।
মন্ত্রী আরো বলেন, শিক্ষকরা যদি ক্লাশে পাঠদানের পরিবেশ সৃষ্টি করে আর শিক্ষার্থীরা যদি মনোযোগী হয় তাহলে কোচিং ক্লাশ ও গাইড বইয়ের প্রয়োজন হয় না। কোন শিক্ষকের কোচিং বানিজ্য ও গাইড বই বানিজ্যের সাথে জড়িত থাকার কথা না। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে নারীবান্ধব শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। নারী এগুলে দেশ জাতি ও বিশ্ব আগাবে। এতে পুরুষেরাও লাভোবান হবে।
শরীয়তপুর কলেজে খুব শীঘ্রই নতুন পদ সৃষ্টি, অডিটোরিয়াম ভবন নির্মাণ, লাইব্রেরী নির্মাণ, কম্পিউটার ল্যাব সৃষ্টি ও ছাত্র-ছাত্রিনীবাস ভবন নির্মাণ করা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রী প্রকাশ করেন।
অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন পনি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ,কে,এম এনামুল হক শামীম এমপি। তিনি বলেন, শরীয়তপুর হবে দেশের অন্যতম ১০টি জেলার মধ্যে একটি। শরীয়তপুরে রেল সংযোগ হবে। পদ্মা সেতু থেকে শরীয়তপুরের সংযোগ সড়ক হবে ৪ লেনের। আগামী ৫ বছরের মধ্যে শরীয়তপুর-চাঁদপুর সড়কের মেঘনা নদীতে মেঘনা সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসবই করবেন শিক্ষা ও শিক্ষার্থীদের কল্যাণে।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শরীয়তপুর-১ আসনের এমপি ইকবাল হোসেন অপু। উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা শিকদার, জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন পিপিএম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার, জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, শরীয়তপুর পৌর মেয়র মো. রফিকুল ইসমাল কোতোয়াল প্রমূখ।
এ সময় এডভোকেট আলহাজ্ব সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের সৌজন্যে শরীয়তপুর সরকারী কলেজ ও সরকারী গোলাম হায়দার মহিলা কলেজের ২০ জন কৃতি ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়।

Facebook Comments





error: Content is protected !!