Main Menu

টেকসই নগর উন্নয়ন এসডিজি’র সাথে

শরীয়তপুর পৌরসভার সমঝোতা স্মারক স্বক্ষর ও মতবিনিময় সভা

শরীয়তপুর পৌরসভার আয়োজনে টেকসই নগর উন্নয়ন লক্ষমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ পৌরসভা সমিতি ও শরীয়তপুর পৌরসভার মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ১০টায় শরীয়তপুর পৌরসভার সভাকক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আল মামুন শিকদার, বাংলাদেশ পৌরসভা সমিতিরি সভাপতি মো. আঃ বাতেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. খালিদ হোসেন, মধুখালী পৌরসভার মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান, ইউসিএলডির প্রজেক্ট ম্যানেজার মিস আশি বুডিয়াটি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন পৌর কাউন্সিলর সাইফুর রহমান রাজ্জাক ও সুমাইয়া।
জানাগেছে, যৌথ মনিটরিং প্রোগ্রাম রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০১৫ সালেই বাংলাদেশ স্যানিটেশন কভারেজের ১০০ শতাংশ লক্ষ্য অর্জণ করেছে এবং নেপাল সরকারের ২০১৫ সালের পারি সরবরাহ মন্ত্রনালয়ের স্যানিটেশন স্ট্যাটাস রিপোর্ট অনুযায়ী প্রায় ৯৬ শতাংশ স্যাটিটেশন কভারেজের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পেরেছে। তবে দ্রæতএবং অপরিকল্পিত নগরায়নের ফলশ্রæতিতে নগর স্যানিটেশন উভয় দেশের জন্যই একটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিবে। দুটি দেখই স্যানিটেশন কভারেজ বাড়ানোর ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি লাভ করলেও এখন তাদেও মূল লক্ষ্য দ্বিতীয় প্রজন্মের স্যানিটেশন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা। শরহ এলাকায় সেপ্টিক ট্যাংক এবং পিট ল্যাট্রিন ব্যবহার করে স্যানিটেশন কভারেজ বাড়ানোর ফলা আগামী কয়েক বছরের মধ্যে মানব বর্জ্যওে পরিমান উল্লেখযোগ্য পরিমানে বৃদ্ধি পাবে। এ বর্জ্য সঠিকভাবে সংগ্রহ এবং সুষ্ঠবিন্যাস করা না হলে তা উন্মক্ত পরিবেশে ও জলাশয়গুলোতে মিশে যায়। যা পরিবেশ এবং স্বাস্থ্যও জন্য মারাক্তক ঝুঁকিস্বরূপ।
আরও জানাগেছে, এ ঝুঁকি মোকাবেলার উদ্দেশ্যে উইনাইটেড সিটিস এন্ড লোকাল গর্ভর্মেন্ট এশিয়া প্যাসিপিক, বিল এন্ড মেডিন্ডা টেস ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে বাংলাদেশ পৌরসভা সমিতি-ম্যাব এবং মিউসিসিপাল এসোসিয়েশন অফ নেপাল এর সাথে পৌরসভাগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধিও জন্য কাজ করা শুরু করেছে। যেন পৌরসভাগুলো মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য কার্যকর নীতিমালা তৈরী করতে, তা বাস্তবায়ন করতে পারে এবং কার্যকরী স্যনিটেশন ব্যবস্থাপনার জন্যযথোপোযুক্ত অর্থায়নের ব্যবস্থা ও কৌশল তৈরীতে অবদান রাখতে পারে। এই পদক্ষেপ জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন-৬‘সবার জন্য বিশুদ্ধ পানি এবং স্যানিটেশন’ এই লক্ষ্যমাত্রার সুনির্দিষ্ঠ লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

Facebook Comments





error: Content is protected !!